How to lighten underarm skin – get rid of dark armpits – কিভাবে বগলের নিচের ত্বককে ফর্সা করা যায় – কালো বগলের ত্বক থেকে কিভাবে রক্ষা করা যায়

বগলের কালো ত্বকের প্রধান কারণ হল হাত কাটা জামাকাপড় পড়া। ইটা ভাবা যেতেই পারে মুখের বর্ণের সঙ্গে বগলের ত্বকের রং ও একই হবে। বাজারে ক্রিম উপলব্ধ যা বগলের নিচের ত্বকের বর্ণকে হালকা করে। এমনকি কেশ নিষ্কাষণকারী ক্রিম গুলিতেও বগলের ত্বকের বর্ণ হালকা করার গুন্ বর্তমান থাকে। বগলের কালো ত্বক থেকে মুক্তি পেতে কিছু’ প্রাকৃতিক উপায় বেঁচে নেওয়া যেতে পারে।

ফর্সা এবং কালো ছাপমুক্ত বগলের ত্বক সমাজের প্রত্যেক নারীর কাছেই কাঙ্খিত। কিন্ত বেশিরভাগ মহিলার ফর্সা বগলের ত্বক দেখতে পাওয়া খুব কঠিন। কিছু নারী ক্ষতিকর কেশ নিস্কাসক ক্রিম ব্যবহার করে ত্বক পুড়িয়ে ফেলে আবার কিছু মহিলা নিয়মিত ওয়াক্সিং করে যার পার্শপ্রতিক্রিয়া স্বরূপ বগলের চামড়া কালো হয়ে যায়। বাজারে এমন অনেক ক্রিম এবং লোশন আছে যা বগলের ত্বকের বর্ণ পরিষ্কার করার দাবি করে। অথচ এই গুলি সংবেদনশীল ত্বকের জন্য একেবারেই উপযুক্ত নয়। ঘরোয়া টোটকা এই ধরণের ত্বকের জন্য সহায়ক।

বগলের ত্বকএর বর্ণ হালকা করার প্রাকৃতিক উপায় (Natural ways to lighten underarms)

আপনি কি হাতকাটা পোশাক পড়তে পারেন ,আপনি এতে কতটা নিশ্চিত ? আপনাকে এই ছোট্ট ব্যাপার তা নিয়ে ভাবতে হবে এবং সচেতন হতে হবে। আপনি কি আপনার বন্ধুদের এই সমস্যা না হওয়ার দরুন অখুশি বা ঈর্ষা বোধ করেন আর ভাবছেন আপনার সাহায্য কেউ করতে পারবে না। এই সমস্যার সমাধানের জন্য বিউটিপার্লারে যাওয়াও অসস্থিকর এবং থেকে নিস্তার পাওয়াও অনেক খরচ সাপেক্ষ। এবং এর ফল যে পাওয়া যাবে তও নিশ্চিত নয়।

বগলের নিচের ত্বক কালো কারণ হলো কিছু বস্তুর উপর ত্বকের প্রতিক্রিয়া যেমন সূর্যের ক্ষতিকারক অতি বেগুনি রশ্মি। কোনো রোগ বা চিকিৎসাধীন অবস্থা নয়। কয়েকটির মধ্যে প্রধান কারণ হলো নিয়মিত কেশ নিষ্কাষণকারী ক্রিমের ব্যবহার , ক্ষৌরকর্ম, মৃত কোষের জমা হওয়া ,অতিরিক্ত ঘাম , এবং এলকোহল যুক্ত সুগন্ধির ব্যবহার। এর জন্য কিছু সস্তা , নিরাপদ ও সহজ ঘরোয়া উপায় আছে যা এই সমস্যা থেকে মুক্ত করতে পারে।

কিছু ক্ষেত্রে কালো বগলের ত্বকের কারণ কিছু রোগ ও হতে পারে , প্রধানত ইনসুলিন এর প্রতিরোধের জন্য , মোটা হওয়া , হরমোনের অস্বাভাবিকতা, কিছু ওষুধ ,এবং ক্যান্সার এর সঙ্গে যুক্ত। এই সব ক্ষেত্রে সঠিক রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

বগলের/হাতের নিচের ত্বকের বর্ণ হালকা করার কিছু ঘরোয়া উপায় (Home remedies to lighten dark underarms/armpits)

লেবুর রস (Lemon juice)

স্নান করার ঠিক আগে লেবুর টুকরো বগলের নিচে ঘষতে হবে এর পর ময়েস্টটারাইজার লাগাতে হবে ত্বকে বেশ কিছু দিন ডিওডরেন্ট লাগানো চলবে না। লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচিং পদার্থ যা ধীরে ধীরে ত্বককে সাদা করবে। একটা কৌটোতে তাজা লেবুর রস নিয়ে তাতে ডুবাতে হবে। এইবার ধীরে ধীরে বগলের নিচ এবং কালো হয়ে যাওয়া জায়গায় ধীরে ধীরে লাগাতে হবে। এছাড়া লেবু কেটে টুকরোটি কালো হয়ে যাওয়া জায়গায় বগলের নিচে লাগালে ভালো ফল পাওয়া যায়। যেহেতু লেবুর বিরঞ্জক ধরবো বর্তমান তাই ইটা ধীরে ধীরে ত্বককে ফর্সা ও আকর্ষণীয় করে তোলে।

দুধ ও জাফরান (Milk and saffron)

দুই চামচ দুধে ক্রিমে এক চিমটে জাফরান মিশিয়ে বগলের নিচে রাতে ঘুমানোর আগে লাগাতে হবে। সারা রাট এভাবে রেখে দিতে হবে এবং সকালে ধুয়ে ফেলতে হবে। জাফরান বগলের নিচের ত্বককে ফর্সা করে এবং

দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারি ব্যাক্টেরিয়া নাশ করে। জাফরান একটি অতি মূল্যবান মশলা যা দুধের সঙ্গে মিশিয়ে অন্তঃসন্তা নারীকে খাওয়ানো হয় যাতে সে ফর্সা ছেলে অথবা মেয়ের জন্ম দেয়। এবার নিজের ত্বককে সুন্দর করার দুধে জাফরানের কিছু টুকরো ডুবিয়া ছয় ঘন্টা ডুবিয়া রাখতে হবে। সময় হয়ে গেলে দেখা যাবে দুধের বর্ণ হলুদ হয়ে গাছে এবং জাফরানের রং বদলে গাছে। এর পর এই মিশ্রণটি ১৫ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রাখতে হবে শোকায়। এর পর ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।

শশা এবং আলু (Cucumber and potato)

শশা অথবা আলুর টুকরো কেটে বগলের নিচে ঘষতে হবে অথবা থেঁতো করে সংক্রমিত স্থানে লাগাতে হবে। এর পর ১৫ মিনিট এটাকে এই অবস্থায় রেখে দিতে হবে তার পর জলে ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে আমরা বগলের ত্বকের বর্ণ খুব তাড়াতাড়ি সাদা হয়। আলু এবং শশা পৃথক ভাবে ত্বকের বর্ণ সাদা করার খুব এ উপযোগী বস্তু। এই দুই প্রাকৃতিক বস্তুকে একত্রিত করেও লাগালে দ্বিগুন উপকার পাওয়া যেতে পারে। ১/৪ ভাগ শশা এবং সময় পরিমান আলু ছুলে নিতে হবে। এর পর এগুলি কেটে একত্র করে রাখতে হবে যাতে এগুলো কোমল মন্ডে পরিণত হয় এর পর এতে বেসন মিশিয়ে শক্ত করে বগলের নিচে লাগাতে হবে। ১৫ মিনিট পরে হালকা গরম জল দিয়া ধুয়ে ফেলতে হবে।

গোলাপজল ও চন্দন (Rose water and sandalwood)

কালো বগলের ত্বক দূর করার জন্য চন্দন আর গোলাপজলের একটি পেস্ট]বানাতে হবে। এই পেস্ট হাতের নিচের অংশে কিছুক্ষন লাগিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। গোলাপ জল ত্বককে ঠান্ডা করবে আর চন্দন ত্বকে জেলা ফিরিয়ে আনবে এবং ফর্সা ভাব ফুটিয়ে তুলবে। ইটা রোজ ব্যাবস্থার করা যেতে পারে পার্থক্য বোঝার জন্য। বাজার থেকে চন্দন কাঠ কিনে তা শিলনোড়ায় ধোষলে তার থেকে চন্দনের পেস্ট পাওয়া যাবে। চন্দন বাটার সময় শীল নোড়ায় সাধারণ জলের বদলে গোলাপ জল দিতে হবে। এর থেকে যে জলযুক্ত পেস্ট পাওয়া আজবে তা বগলের নিচে মাখতে হবে। বিকল্পভাবে চন্দনের গুঁড়ো আর গোলাপ জল মিশিয়ে পেস্ট তৈরী করাও যেতে পারে। এটা বগলের নিচে ১০ মিনিট লাগিয়ে তার পর সাধারণ জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।

বগলের ত্বক ওয়াকক্সিং / ইলেকট্রোলাইসিস (Underarm waxing/Electrolysis)

ওয়াক্সিং প্রচেষ্টা করুন!! এতে ব্যাথা লাগলেও সঙ্গে সঙ্গে ফর্সা ত্বক পাওয়া যায় কারণ এতে বগলের কেশ গোড়া থেকে নির্মূল হয়ে যায়। ওয়াক্সিং আবার ত্বকের স্তর ওঠানোর প্রক্রিয়া হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তড়িৎবিশ্লেষণ প্রক্রিয়া গ্রহণ করা যেতে পারে যা যা অত্যন্ত উত্তম ও স্থায়ী সমাধান। সামান্য কিছু সময়ে ত্বকের কালো অংশ সাদা হতে থাকবে।

তড়িৎবিশ্লেষণের সাহায্যে কালো ত্বক ফর্সা বা সাদা করা যেতে পারে। যখন আপনার হাতের নিচের কেশ বড়ো হতে থাকবে তখন পার্লার গিয়া বক্সিং করে আসতে হবে। এই প্রক্রিয়াতে ব্যাথা হতে পারে কিন্তু কখনোই বগলের ত্বককে কালো করবে না। এই উপায় বগলের সব কেশ গোড়া থেকে উৎপাটিত হয় ফলে ত্বক নিরাপদ থাকে ও সুস্থ থাকে। আপনাকে হাতাকাটা পোশাক পড়তে র কোনো চিন্তা করতে হবে না।

লেবু শশা ও হলুদ (Lime cucumber and turmeric)

১ চা চামচ লেবুর রস ,১ চা চামচ শসার রস আর এক চিমটে হলুদ নিতে হবে। এগুলি মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরী করতে হবে। এই পেস্ট কুড়ি মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে। ইটা সপ্তাহে অন্তত চার বার ব্যবহার করতে হবে , এটা কালো বগলের ত্বকের খুবই জন্য খুব এ কার্যকরী উপায়।

এখন আপনি সমস্ত প্রাকৃতিক পদাথ দিয়া একটি পেস্ট তৈরী করে ব্যবহার করতে হবে কালো হাতের নিচের ত্বক থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য। এই পেস্ট এ প্রধানত হলুদ গাছের গোড়া লাগবে যা মাটির তোলা থেকে তুলতে হবে। এই পেস্ট তৈরিতে এটি এক চিমটে লাগবে। ১ চা চামচ লেবুর রস লাগবে পেস্ট তৈরি’তে। ১/৪ অংশ শসা লাগবে এই পেস্টটি বানাতে। এখন লেবুর রস ,শশা এবং হলুদ দিয়া একটি দুর্দান্ত পেস্ট তৈরী হবে। এবার এটি দু হাতের তলায় লাগিয়ে কিছুক্ষন শুকোতে দিতে হবে। কিছুক্ষন পরে যখন পুরো পেস্ট শুকিয়ে যাবে তখনহালকা’গরম জলে ধুলেই পার্থক্য স্পষ্ট বোঝা যাবে।

ডিওডরেন্ট ব্যবহার করা একেবারে চলবে না বরং পাউডার ব্যাবহার করা যেতে পারে।

বগলের কালো দাগ দূর করার উপায়সমূহ (Ways to get rid of dark armpits)

লেবু (Lemon)

লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে’ এবং এটি প্রাকৃতিক এন্টিসেপ্টিক ও ব্যাক্টেরিয়া বিনাশকারী পদার্থ। লেবুর রসে কিছু পরিমান হলুদ গুঁড়ো ,মধু অথবা দই মিশিয়ে ১০ মিনিট রাখতে হবে আর তার পর ধুয়ে ফেলতে হবে।

বেকিং সোডা (Baking soda)

বগলের ত্বকের রং কালো হওয়ার প্রধান কারণ হলো মৃত কোষের সমষ্টি। এই স্তর খুব সহজেই উঠিয়া ফেলা যায় বেকিং সোডা এবং জলের মিশ্রনের একটি পেস্ট ব্যবহার করে। ইটা ত্বকের চিন্দ্র গুলি মেরামত করতেও সাহায্য করে।

কমলা লেবুর খোসা (Orange peel)

কমলা লেবুর খোসা বগলের ত্বক ফর্সা করতে ব্যবহার হয় এর ত্বক ফর্সা করার ধর্মের জন্ন্য। কমলার খোসা শুকিয়ে তার গুঁড়ো,গোলাপজল এবং দুধ থেকে পেস্ট বানাতে হবে। এবং তা বগলে ব্যাবহার করে ধুয়ে ফেলতে হবে।

ভিনিগার (Vinegar)

ভিনিগার কালো বগলের ত্বকের থেকে মুক্তি দিতে পারে। ইটা শুধু ত্বকের বর্ণ ফর্সা করে না ইটা সব ব্যাকটেরিয়া বিনাশ করে যা মৃত কোষের জন্মায় এবং দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। ভাতের মার্ আর ভিনিগার মিশিয়ে পেস্ট তৈরী করে বগলে লাগাতে হবে। ১৫ মিনিট সুকীয়া নিয়ে গরম জল দিয়া ধুয়ে ফেলতে হবে।

গ্রাম ফ্লোর (Gram flour)

এটা ব্যাসন হিসেবেও পরিচিত বগলের কালো ত্বক থেকে মুক্তি দিতে পারে। ব্যাসন দই লেবুর রস ও হলুদ দিয়া একটি পেস্ট বানাতে হবে। এই পেস্টটি বগলের নিচে লাগাতে হবে। ত্রিশ মিনিট রেখে জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।

বগলের ত্বক ফর্সা করার অন্যান্য ঘরোয়া উপায় (Other home remedies to whiten the skin under the arms)

এই টোটকা গুলি কোমল মসৃন ও ফর্সা ত্বক প্রদান করে , পাশাপাশি কালো বগলের ত্বকের থেকে মুক্তি দেয়।

প্রাকৃতিক স্ক্র্যাব দ্বারা ত্বকের স্তর উঠিয়া ফেলা (Exfoliate underarms with natural scrubs)

মৃত কোষের জমায়েত বগলের ত্বক কে কালো করে তোলে। এই অবস্থায় প্রাকৃতিক স্ক্র্যাব ব্যবহার করে ত্বকের একটি স্তর উঠিয়া ফেলতে হবে। প্রাকৃতিক স্ক্র্যাব এ কোনো কঠোর রাসায়নিক পদার্থ থাকে না।

  • লেবু এবং কণিকাকার চিনি দিয়া ১৫ মিনিট ঘষতে হবে। কেশ চাচার জন্য তৈরী কালো দাগের ক্ষেত্রে এই উপায় খুব উপযোগী।
  • কাঠবাদাম ও চীন বাদাম এক সঙ্গে থেঁতো করে নিতে হবে। লেবুর রস আর মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরী করতে হবে। এই পেস্ট বগলের নিচে লাগিয়ে ১০ মিনিট রাখতে হবে। সাধারণ জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।

কালো হাতের বা বগলের ত্বকের থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু উপায় (Oily way to get white underarms)

ফর্সা বগলের ত্বকের জন্য তৈলাক্ত উপায় এরকম অনেক তেল রয়েছে যা বোরোলের ত্বক ফরসা ও সুন্দর করে।

অলিভ অয়েল (Olive oil)

এর সঙ্গে বাদামি চিনি মিশিয়ে অতি উত্তম স্ক্র্যাব বানানো যায় যা বগলের ত্বকের রং ফিরিয়া আনে। অলিভ এর টেলি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অন্নান্ন উপকারী পদার্থে পরিপূর্ণ।

নারকেল তেল (Coconut oil)

এই তেল ও ত্বকের রং ফর্সা করে কারণ এতে ভিটামিন ই আছে। স্নান করার আগে সামান্য নারকেল তেল বগলে লাগিয়ে স্নানের সময় তা মৃদু সাবান দিয়া ধুয়ে ফেলতে হবে। পৃথক ভাবে ভিটামিন এ ক্যাপসুল বগলের নিচে লাগানো যেতে পারে।

ভিটামিন ই যুক্ত তেল (Vitamin E oil)

এই তেল শুধুমাত্র বগলের তলদেশ ফর্সা করতেই সাহায্য করে তা নয়, এছাড়াও এটি আপনার ত্বক নরম ও মসৃণ করে। কয়েক মিনিটের জন্য দৈনিক সামান্য তেল দিয়ে ঘষুন এবং ধুয়ে নিন। বিকল্পভাবে আপনি ভিটামিন ই যুক্ত কেপসুল বগলের তলদেশে প্রয়োগ করতে পারেন।

বিভিন্ন তেলের মিশ্রণ (A mixture of multiple oils)

অলিভ অয়েল,জোজোবা অয়েল ধানের তেল লেবুবর্গের তেল এর মিশ্রণ বগলের ত্বকে লাগানো হলে ইটা ত্বকের কালো ভাব দূর করে ত্বককে ফর্সা করে তোলে। এই টেলি থাকা ফটটি অ্যাসিড ও ভিটামিন ত্বককে আদ্রতা প্রদান করে আর লেবুর তেল ত্বকের রং ফর্সা করে।

বগলের ত্বককে সাদা করার ভেষজ উপায় (Herbal remedies to lighten underarms)

অনেক ভেষজ আছে যা বগলের ত্বক ফর্সা করতে সাহায্য করে। যষ্টিমধুর নির্যাস ,আসপেন রাসবেরি এসব মিশিয়ে বগলে লাগাতে হবে। ত্রিশ মিনিট পর এগুলো জলে ধুয়ে ফেলতে হবে। সমস্ত ভেষজে ঔষধি গুন্ আছে এগুলির মিশ্র প্রতিক্রিয়ায় বগলের ত্বক ফর্সা হয়ে ওঠে।

ফর্সা বগলের বর্ণ পাওয়ার ঘরোয়া উপায় (Home remedies to get light under arm skin)

বগলের রং সাদা করার জন্য শশা (Cucumber to lighten underarm)

অর্ধেক শশা নিয়ে তা চুলে থেঁতো করে থকথকে পেস্ট বানাতে হবে। এই পেস্টটি দু হাতের নিচে ভালো ভাবে লাগাতে হবে। যদি আপনি চান তাহলে সবার রস ও লাগাতে পারেন। আরো ভালো ফলের জন্য এতে কিছু ফোটা লেবুর রস ও হলুদের গোড়া মেশাতে হবে। এই পেস্টটি লাগানোর ১ ঘন্টা পরে এগুলিকে ধুয়ে ফেলতে হবে। ১ মাস পরেই এর পার্থক্য বোঝা যাবে।

ডিমের তেল (Egg oil)

হয়তো ডিমের তেল কথাটা আপনি প্রথমবার শুনছেন। কিন্তু ইটা খুব সহজেই ডিম্ থেকে নিষ্কাশন করতে পৰ যেতে পরে অথবা এটি যেকোনো দোকানে উপলব্ধ। সামান্য কিছু ফোটা ডিম্ তেল নিয়ে তা বগলের নিচে ব্যবহার করে হবে। এর পর খুব ভালো করে ম্যাসেজ করে ধুয়ে ফেলতে হবে কিছুক্ষন রাখার পরে। সঠিক ম্যাসেজ ত্বককে কোমল ও সুন্দর করে। সকালে উঠে এগুলে পঃ ব্যালান্সকরি সাবান দিয়া ধুয়ে ফেলতে হবে।

বগলের রং ফর্সা করার জন্য আলুর ব্যবহার (Potato to remove underarm darkness)

আপনি হয়তো রোজ আলু খেয়ে থাকেন আপনার খাবারের সঙ্গে বা অন্য কোনো প্রকারে। এই সুন্দর সবজিটি আপনার ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। আপনাকে খালি আলু ছুলে টুকরো করে বগলে লাগাতে হবে। ধীরে ধীরে টুকরোটি ঘষতে হবে ক্ষতিগ্রস্ত জাগায়। আরো তাড়াতাড়ি ফলের জন্য আলুর রস লাগাতে হবে। বগলের নিচে আলুর রস লাগিয়ে ১০ মিনিট রাখতে হবে। ১০ মিনিট পর অবশ্যই ধুয়ে ফেলতে হবে।

বগলের ত্বক ফর্সা করতে লেবু (Lemon to lighten underarms)

লেবু মোটা করে কেটে বীজ গুলিকে ফেলে দিতে হবে। এই টুকরো গুলি নিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ জাগায় ঘষতে হবে গুলি কালো হয় গেছে। লেবুকে প্রাকৃতিক বিরঞ্জক বলা হয় যা ত্বককে ফর্সা করে। এটি ত্বকের মৃত কোষ দূর করে ত্বককে আকর্ষণীয় করে তোলে। ঠিক ১০ মিনিট পরে এটি যেখানে লাগানো হয়েছে সেখান থেকে ধুয়ে ফেলতে হবে। এর পর সেখানে মোয়েস্টারাইজার লাগাতে হবে। আপনি ঠিক সেই জাগাটিকে আরো উজ্জ্বল করতে পারেন দই মধু আর এক চিমটে হলুদের মিশ্রণ দিয়া । এটিও ১০ মিনিট রেখে জলে ধুয়ে ফেলতে হবে। বারবার লেবুর ব্যবহার ত্বককে শুষ্ক করতে পারে তাই দই ত্বকে আদ্রতা ফিরিয়া আনতে সাহায্য করে। এটা শুধু কালোভাব ত্বক থেকে দূর করে তাই নয় ক্ষতিগ্গ্রস্থ জাগায় আদ্রতার একটি স্তর তৈরী করে। শুধু ব্যবহার করুন আর ফল দেখুন।

কালো বগলের ত্বকের কারণ (Reasons for dark underarms)

এই সমস্যার সমাধান খোঁজার আগে দেখতে হবে প্রথমে এর কারণ কি। এর পেছনে অনেক কারণ বর্তমান। এমন অনেক কারণ আছে যার থেকে কালো বগলের ত্বক তৈরি হয়। এর পেছনে সঠিক কারণ নির্ধারণ করতে খুব এ জরুরি। বিভিন্ন প্রসাধনীর ব্যবহারের ফলে ত্বক কালো হতে পারে। হেয়ার রিমোভের ত্বকের রং কালো করতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ডিওডরেন্ট ব্যবহারের ফলেও বগলের রং কালো হতে পারে (Deodorants may cause dark underarms)

ডিওডরেন্ট এ ক্ষতিকর রাসায়নিক বর্তমান যা ত্বকের রং কালো করে। রাসায়নিক ব্যবহারের ফলে পিগমেন্টেশন হয় যা পরে পাকাপাকিভাবে কালো আকার ধারণ করে। এর সঙ্গে লড়ার সঠিক উপায় হলো ডিওডরেন্ট বা কোনো সুগন্ধি ব্যবহার না করে প্রাকৃতিক উপায় দেহের গন্ধ দূর করা। গরমের সময় মানুষ ক্রমাগত ডিওডরেন্ট ব্যবহার করে বগল শুকনো রাখতে। ঘামে যে ব্যাকটিরিয়া থাকে তও অনেক সময় দুর্গন্ধ তৈরী করে। এই ডিওডরেন্ট এই দুর্গন্ধকে সুগন্ধতে পরিণত করে। কিন্তু ডিওডরেন্ট ত্বকের সঙ্গে বিক্রিয়া করে এবং ত্বককে কালো এবং কুৎসিত করে তোলে।

বগলের কেশ চাছা বন্ধ (Stop armpit shaving)

ক্ষৌরকর্ম করার জন্য রেজার ব্যবহার করা চলবে না। ত্বকের ঠিক নিচের ছোট ছোট চুল বগোলকে কালো দেখায়। যাননি অ্যানি ফ্রেঞ্চ বা ভিট এর মতো ক্রিম এ ক্ষতিকর রাসায়নিক বর্তমান যা কেশের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকেও পুড়িয়ে দেয়। এই পরিনাম এলার্জি বা কালো বগলের ত্বক। এক্ষেত্রে ওয়াক্সিং পরীক্ষা করা যেতে পারে যা কেশকে গোড়া থেকে উৎপাটিত করে।

সবার বগলের তলায় কেশ থাকে যা তাদের অনাকর্ষণীয় করে তোলে। মানুষ নানা উপায় এই কেশ তোলার চেষ্টা করেছে। বাজারে প্রাপ্ত হেয়ার রিমুভার ক্রিম খুব সহজেই কয়েক মিনিটে তা করে দেয়। কিন্তু এতে বগল কালো বর্ণ ধারণ করে। এরকম অনেক হেয়ার রিমোভার ক্রিম আছে যা কেশ তোলার সঙ্গে ত্বকের উপরের স্তরকে কালো করে দেয় ।

ঘর্ষণ (Friction)

গোগোলের নিচে জমা স্নেহ পদার্থ জামাকাপড়ে ঘষা লেগে বগল কালো করে তোলে তাই উচিত কাজ করে ওজন কমিয়ে ফেলা। প্রত্যহ চাপা জামাকাপড় পড়া ত্যাগ করতে হবে কারণ জামার কাপড় ও বগলের ঘর্ষণ বগলের ত্বককে কালো করে। বরঞ্চ গরমে ঢিলা জামাকাপড় পড়লে হাওয়া চলাচল করতে পারে। বগলের নিচে ঘর্ষণের প্রধান কারণ বগলে স্নেহ পদার্থ জমা। যদি পানি রোগ হন তাহলে বগলের তোলা কালো হবে না। কিন্তু যদি বগলে চর্বি জমে তাহলে ঘর্ষণ প্রবল হরে বৃদ্ধি পায়। ইটা প্রধানত গরমকালে দেখা যায়। এই গোর্শন রোধ করতে ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করা যেতে পরে।

বংশগত (Hereditary)

বংশগত কারণ ও এই কালো ত্বক হতে পারে। যেসব হরমোনের জন্য পিগমেন্টেশন হয় তা গর্ভনিরোধক বড়িতে থাকে। এই সব ক্ষেত্রে কালো ত্বকের সমস্যা আরো গভীর , ভালো চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। যদি কোনো আত্মীয় বা কোনো পূর্বপুরুষের কালো বগলের সমস্যা থাকে তাহলে পরিবারের ইতিহাস খতিয়ে দেখতে হবে। বগলের নিচের কালো দাগ বংশগত কারণেও হয়ে থাকে।

মৃত কোষ (Dead cells)

শেষ এবং অবশিষ্ট কারণ মৃত কোষের জমায়েত হলে বগলের ত্বক কালো বর্ণ ধারণ করে। আপনার চাই ল্যাকটিক অ্যাসিড সহযোগে স্ক্র্যাব করা যা ত্বকের উপরের স্তর উঠায়।মানুষ শরীরের কিছু অংশ যেমন মুখমন্ডল এর দেখাশুনা করে এবং বাকি অংশ এমন ভাবে ছেড়ে দে যেন তা সৎ বোন। কিছু মানুষ এটাও জানে না যে বগলের নিচে মৃত কোষ জমতে পারে। যেভাবে মুখের ত্বকের স্তর উঠিয়া ফেলতে হয় সেভাবেই বগলের ত্বকের স্তর ওঠাতে হবে। ইটা আপনি চিনি ও অলিভ অয়েল মিশিয়ে মিশ্রণটি দিয়াও করতে পারেন।

বগলের নিচের ত্বক ফর্সা করার উপায়সমূহ (Ways to lighten underarm skin)

টমেটো (Tomato)

বগলের নিচের অংশের ত্বক কালো বিভিন্ন কারণে হতে পারে। এর মধ্যে অন্যতম কারণ হল সূর্যের অত্যধিক সংস্পর্শ। এছাড়াও অন্যান্য শারীরিক কারনের জন্য বগলের নিচের অংশের ত্বক কালো হতে পারে। এর প্রতিরোধের জন্য আপনাকে কিছু টিপস নিতে হবে যা আপনার বগলের অন্ধকারকে প্রাকৃতিক ভাবে সরিয়ে তুলতে সাহায্য করবে। শুধুমাত্র টমেটোর নরম রসালো অংশ প্রয়োগ করুন এবং পার্থক্য দেখে নিন। আপনাকে ২০ মিনিটের জন্য টমেটোর নরম রসালো অংশ বগলের তলায় রাখতে হবে এবং তারপর নরমাল জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

চিনি ও মধু (Sugar and honey)

আপনার ত্বকের কালো অন্ধকারময় স্তর মৃত ত্বকের কারণে হতে পারে। আপনাকে যা করতে হবে তা হল চিনি সেইসাথে মধু প্রাকৃতিক মিশ্রণ আপনার ত্বকের উপর প্রয়োগ করতে হবে। আপনি দুই চামচ মধু এবং আধ চামচ চিনি নিতে হবে। ভালো করে মিশ্রণ করুন এবং বগলের তলদেশে প্রয়োগ করুন। হাত দিয়ে বগলের তলদেশ ভালো করে ঘষুন। 2-3 মিনিটের জন্য এই ভাবে ঘষুন এবং তারপর 10 মিনিটের জন্য রেখে দিন। তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন।

ছোলা ময়দা দিয়ে তৈরী মাস্ক (Chickpea flour mask)

প্রাকৃতিক ভাবে তৈরী মাস্ক ও ভাল কাজ করে যখন আপনি আপনার বগলের নিচের অন্ধকার অংশকে সাদা বানাতে ইচ্ছুক। এর প্রতিকারের জন্য আপনাকে উপাদান সমূহ যেমন ডিমের কুসুম – ১ চা-চামচ, হলুদ -১ চিমটি , ছোলার সাতু – ২ চা-চামচ নিতে হবে। একটি ছোট বাটি নিন এবং এই সব উপাদান সমূহ ভালো করে মিশ্রিত করুন এবং আপনার বগলের উপর প্রয়গ করুন। .মনে করে হাত দুটো উপর করে রাখবেন যাতে বগলে কোনো রকম ভাঁজ না পরে। পাখার হাওয়া প্রয়োগ করুন যাতে তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়। এরপর কিছিক্ষন রেখে ঈষৎ উষ্ণ জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন।

সূর্যমুখীর তেল (Sunflower oil)

আপনি হয়তো বাড়ীতে খাবার রান্না করার জন্য এই বিশেষ তেল ব্যবহার করা থাকবেন। আপনি বাড়ীতে খাবার রান্না করা ছাড়াও , এই রান্নার তেল আপনার বগলের তলদেশকে ফর্সা করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। হ্যাঁ, অন্ধকার চামড়া স্তর খুব সহজেই সরানো যায়। আপনি আপনার হাতের করতলে অল্প তেল নিন এবং বিপরীত হাত দিয়ে আপনার বগলে প্রয়োগ করুন।

loading...