Best curd skin care benefits and some tips using curd for skin care in Bengali – ত্বকের যত্নে দই এবং ত্বকের উপকারে দই ব্যবহারের কিছু ঘরোয়া টিপস

গরমকালে প্রখর সূর্যের তাপ থেকে রক্ষা করার জন্য দই খুবই উপকারী। কিন্তু এখন রূপচর্চার জন্যও দই ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি সকালে জলখাবারে এক কাপ দই খাবেন বলে ভাবেন তাহলে আপনার রূপচর্চার জন্য কিছুটা দই আলাদা করে রাখতে ভুলবেন না। দইয়ে থাকে ভিটামিন ডি (Vitamin D), প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম (calcium) যা আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এমনকি নিয়মিত সারা গায়ে দই লাগালে আপনার ত্বক বাইরে থেকেও সুন্দর হয়ে উঠবে। কিন্তু আপনি যদি শুধু রূপচর্চার জন্য দই লাগাতে চান তাহলে খেয়াল রাখবেন যাতে ওই দইয়ে কোনো কৃত্রিম উপাদান মেশানো না থাকে। সাধারণ দই সবচেয়ে বেশি উপকারী।
আমরা যা খাবার খাই সেগুলিতে আমাদের শরীরের কোনো না কোনো উপকারে লাগে। সেভাবেই, আপনি যদি আপনার ত্বককে স্বাস্থ্যকর রাখতে চান তাহলে প্রাকৃতিক উপাদানগুলি সবচেয়ে বেশি উপকার দেয়। দই হলো এমন একটি খাদ্য যাতে প্রচুর পরিমানে পুষ্টিকর উপাদান থাকে। দই আপনার সৌন্দর্যকেও অনেকগুণ বাড়িয়ে তোলে। যদি আপনি বিভিন্ন দামী প্রসাধনীর পেছনে অনেক টাকা খরচ করেন তাহলে বলা উচিত যে দই এইসব প্রসাধনীকে পেছনে ফেলে দিতে পারে। এটি আপনার ত্বক এবং চুল দুইয়ের ক্ষেত্রেই দারুনভাবে কাজ করে। নিজেকে আরো সুন্দর করে তুলতে হলে কিভাবে দই ব্যবহার করবেন তার কিছু টিপস আপনি এখানে পেতে পারেন।
এখন গরমকাল এবং অনেক মহিলারাই এই সময় পার্লারে (parlour) গিয়ে রিলাক্স (relax) করার এবং ত্বকের যত্ন নেওয়ার কথা ভাবছেন। আপনি যদি ওই একঘেয়ে ফেসিয়াল (facial) ও বিউটি (beauty) ক্রিম থেকে আলাদা কিছু চান তাহলে এক্ষুনি আপনার রান্নাঘরে যান যেখানে আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী এরকম হাজারো উপকরণ আছে। দই একটি সুস্বাদু, ক্রিমে ভরা এবং উপকারী খাদ্য। দইয়ে ভিটামিন সি, জিঙ্ক (zink) এবং ক্যালসিয়াম থাকে যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।
দই আমাদের ত্বককে যেমন ভেতর থেকে পরিষ্কার করে তেমনি বাইরে থেকেও ত্বককে মসৃন ও উজ্জ্বল করে তোলে। ত্বক ছাড়াও চুলের যত্নে এবং স্বাস্থ্যরক্ষায় দই খুব উপকারী। আপনি দইয়ের সাথে বিভিন্ন রকমের ফল মিশিয়ে খেতেও পারেন অথবা সরাসরি দইয়ের সাথে অন্যান্য উপকরণ মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন।

ত্বকের যত্নে দইয়ের উপকারিতা (What are some great benefits of curd in natural skin care?)

• রোদে পোড়ার থেকে রক্ষা করে।
• ত্বককে পরিষ্কার করে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়।
• অকাল বার্ধক্য থেকে রক্ষা করে।
• ত্বককে ময়স্চারায়জ (moisturize) করে।
• ত্বককে আরো ফর্সা করে তোলে।
• ত্বকের দাগ ছোপ দূর করে।

প্রাকৃতিকভাবে রূপচর্চায় দইয়ের ব্যবহার (Uses of curd as a natural skin care)

আপনি যদি রূপচর্চার পেছনে বেশি খরচা করতে না চান তাহলে দই হলো আপনার রূপচর্চার একমাত্র সমাধান। দই একটি দুগ্ধজাত উপাদান যা দুধের ব্যাকটেরিয়াল ফার্মেন্টেশন (bacterial fermentation) দ্বারা তৈরী করা হয়। দইয়ে থাকা জিঙ্ক ত্বকের দাগ ছোপ দূর করতে ও ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। দইয়ের ল্যাকটিক (Lactic) কেমিকাল ত্বকে একটি ঠান্ডা অনুভূতি আনে যার ফলে ত্বক হয়ে ওঠে নমনীয় ও পুষ্টি সমৃদ্ধ। দই তৈলাক্ত ত্বকের জন্য খুব একটা ভালো নয় যেহেতু দইয়ে ক্রিমের পরিমান বেশি থাকে এবং তাই তৈলাক্ত ত্বককে এটি আরও তৈলাক্ত করে তোলে। এটি রোদে পুরে যাওয়া জায়গার ব্যথা ও লালভাব দূর করতেও সাহায্য করে।
ত্বকে পুষ্টিকর উপাদান যোগান দিয়ে দই ক্ষতিকর সূর্যরশ্মির হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করে। কমলালেবু ও পাতিলেবুর রসের সাথে মেশালে দই একটি অসাধারণ ক্লিনসার (cleanser)রূপে কাজ করে। ত্বককে নমনীয় ও ফর্সা বানানোর জন্য দইয়ের সাথে ওটমিল মিশিয়ে লাগান। নিয়মিত দই ব্যবহার করলে ত্বকের কালো ছোপ ও ব্রনর হাত থেকেও মুক্তি পাওয়া সম্ভব।
• এক টেবিলচামচ পাতিলেবুর রস নিয়ে তার সাথে ১/২ কাপ দই মেশান। এই মিশ্রন কয়েক ঘন্টার জন্য ফ্রিজে রেখে দিন। হাতে এবং নখে এই মিশ্রণ দিয়ে মাসাজ করুন। বক সপ্তাহ নিয়মিত ব্যবহার করলে আপনি পাবেন নরম ও উজ্জ্বল ত্বক, চকচকে হাতের ও পায়ের নখ।

lemon-juice

• ব্রণ দূর করতে নিয়মিত মুখে দই লাগান। এটি মুখের দাগ দূর করে ও ত্বককে ময়স্তারায়জ করে।

curd

• এক টেবিলচামচ দইয়ের সাথে এক টেবিলচামচ অলিভ অয়েল মেশান। এর সাথে ওটসের গুড়ো মিশিয়ে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরী করুন। মুখে ও গলায় এই মিশ্রন ভালো করে লাগান এবং আধ ঘন্টা ৪৫ মিনিট পর গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

olive-oil

• ২ টেবিলচামচ ওটসগুড়ো, ১ টেবিলচামচ দই ও ১ টি ডিম ফেটিয়ে ভালো করে মেশান। এই মিশ্রণ মুখে ও গলায় ভালো করে মাসাজ করুন। ১৫-২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

oats-flour

• ত্বকের গঠন আরও সুন্দর করতে দইয়ের সাথে বিভিন্ন ফল, পাতিলেবুর রস, মধু ও শশা মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড (blend) করুন। এই মিশ্রণ মুখে ও গলায় লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রাখুন এবং তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

different-fruits

• ৩/৪ ভাগ দই, অর্ধেক পিচ (peach), অর্ধেকটা শশা এবং ১ টি গাজর ভালো করে মিশিয়ে একটি পেস্ট বানান। এই মিশ্রণ মুখে ও গলায় ভালো করে মাসাজ করুন। ১৫-২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক ত্বককে ময়স্তারায়জ করে এবং ফর্সা করে তোলে।

peach

• ত্বকের মরা চামড়া দূর করতে দইয়ের সাথে ডিম, পার্সলে (parsley) ও ওটস মিশিয়ে লাগান। পরিষ্কার ও মসৃন ত্বকের জন্য এই প্যাক খুব উপকারী।

Curd-with-egg

• মধু ও দই মিশিয়ে সারা গায়ে লাগালে গায়ের অবাঞ্ছিত ময়লা দূর হয়।

honey-and-curd

• ১ টেবিলচামচ দইয়ের সাথে ১/২ টেবিলচামচ হলুদ এবং জল মিশিয়ে একটি পেস্ট বানান। সারা গায়ে এই পেস্ট দিয়ে মাসাজ করুন। ২-৩ মিনিট রেখে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক আপনার ত্বককে তরতাজা এবং যৌবনে ভরপুর করে তোলে।

turmeric

দইয়ের ব্যাকটেরিয়ানাশক ও ফাঙ্গাসনাশক গুনের জন্য ত্বকের বন্ধ রোমকূপ থেকে ধুলো ময়লা দূর করে ত্বককে পরিষ্কার রাখতে দইয়ের কোনো বিকল্প নেই। আপনি পুরো শরীর পরিষ্কার করার জন্য বা ত্বককে ময়স্চারায়জ করার জন্য কম ফ্যাটযুক্ত দই বা দুধযুক্ত দই (whole milk) ব্যবহার করতে পারেন।

ত্বকের জন্য দইয়ের উপকারিতা (Benefits of curd for skin)

সানবার্ন থেকে রক্ষা করে (Relief from sunburn)

Relief-from-sunburn

গরমকালের প্রধান সমস্যা হলো সানবার্ন (Sunburn) বা রোদে পুরে যাওয়া। সকালের প্রচন্ড সূর্যের তাপের মধ্যেও আমাদের ব্যক্তিগত বা অফিসের কাজের জন্য ঘরের বাইরে বেরোতেই হয় যদিও সানবার্নের আশঙ্কা থাকে তাও আমাদের বাইরে বেরনো আবশ্যক। কিন্তু দই আমাদের এই সানবার্নের হাত থেকে রক্ষা করে। সারা হাতে ও মুখে দই লাগিয়ে নিলে সানবার্নের থেকে অনেক হাত দুরে আপনি থাকতে পারেন। সুন্দর গন্ধের জন্য দইয়ের সাথে কয়েক ফোঁটা ক্যামমিল (Chamomile) মিশিয়ে নিতে পারেন।

ত্বকের বিবর্ণতা কমায় (Reduction of skin discoloration)

Reduction-of-skin-discoloration

মহিলারা তাদের গায়ের রং নিয়ে খুব সচেতন হয়। তাই সকালে বাইরে বেরোনোর আগে তারা সানস্ক্রিন (sunscreen) লাগাতে কখনো ভোলেন না। কিন্তু সঠিক সানস্ক্রিন ব্যবহার না করলে এতে থাকা কেমিকাল ত্বকের ক্ষতি করতে পারে। তাই সানস্ক্রিনের বদলে আপনি প্রাকৃতিক ও ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করতে পারেন। দই একটি অসাধারণ প্রাকৃতিক উপাদান এবং এটির ব্লিচিং গুন ত্বকের বিবর্ণতা দূর করতে সাহায্য করে। নিয়মিত দই ব্যবহার করলে ত্বকের কালো ছোপ এবং বয়েসের ছোপ ও বলিরেখা অনেক কমে যায়। ২ টেবিলচামচ দইয়ের সাথে কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস মিশিয়ে সারা গায়ে লাগান। ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। আপনি যদি সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন এটি লাগান আপনার ত্বকের বিবর্ণতা অনেকটাই কমে যাবে।

ময়স্চারায়জিং (Moisturizing)

Moisturizing

আপনি নিশ্চয় বাজারে উপলব্ধ ময়স্চারায়জার ব্যবহার করেন। কিন্তু অনেক সময় বেশি দামের জন্য হয়ত আপনি ময়স্চারায়জার কিনতে পারেন না। আপনি যদি আপনার ত্বককে ময়স্চারায়জ করতে দই ব্যবহার করেন তাহলে আপনার খরচ অনেক কমে যায়। ফলে আপনি বেশ কিছু টাকা বাচাতে পারেন। দই লাগানোর আগে মুখ অবশ্যই ভালো করে জল দিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এইবার চোখ ও ঠোট বাদ দিয়ে সারা মুখে দই ভালো করে লাগান। ১০ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। ল্যাকটিক অ্যাসিড থাকায় এট্রি আপনার ত্বকের মরা কোষ তুলে ফেলতেও সাহায্য করে। ঘন দই ব্যবহার করলে আরো বেশি উপকার পাওয়া যায়।

অকালবার্ধক্য দূর করে (Fights premature aging)

Fights-premature-aging

এখন মানুষের বয়েসের আগেই মুখে বয়েসের ছাপ পড়ে যায় বা অকালবার্ধক্য এসে যায়। সঠিক খাবার না খাওয়া, দূষণ এবং এখনকার জীবনধারাই এর জন্য দায়ী। আপনি আপনার ত্বকের উপর যদি অনেক চিন্তা ও চাপ দিয়ে থাকেন তাহলে এখন আপনার ত্বককে ভালো করার জন্য কিছু করা উচিত। আপনি প্রাকৃতিকভাবে এখন বলিরেখা দূর করতে পারেন। ২ চামচ দই এবং অলিভ অয়েল মিশিয়ে একটি দইয়ের মাস্ক বানান এবং ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩ বার লাগালে এই মাস্ক দারুন কাজ করে।
ব্রনর জন্য আপনার ত্বকে যে লালভাব বা দাগ দেখা যায় সেগুলি দূর করতেও দই সাহায্য করে। দই এই সকল ব্রণ দূর করে এবং আবার ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা কমায়।

রূপচর্চায় দইয়ের ব্যবহার (Tips to use curd for beauty)

সানবার্ন দূর করতে দই (Curd for sun burn)

আপনার ত্বকে যদি অনেক সানবার্ন বা রোদে পোড়া দাগ থাকে তাহলে দই সেসব দাগ দূর করতে দারুনভাবে কাজ করে। এক চামচ দইয়ের সাথে অর্ধের টমেটোর রস মিশিয়ে এই মিশ্রণ সারা মুখে লাগান। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

মরা কোষ দূর করতে দই (Curd for dead skin removal)

আপনার ত্বক যদি খুব শুষ্ক হয়ে থাকে তার মানে আপনার ত্বকে মরা কোষের আস্তরণ আছে। দই ব্যবহার করে আপনি এই মরা কোষের সমস্যা থেকে মুক্ত হতে পারেন কারণ দই এই মরা কোষকে দূর করে। একটি পাত্রে একটি ডিম ফেটান। এর সাথে কিছু পার্সলে পাতার গুড়ো এবং দই মেশান । এই মিশ্রণ ভালো করে আপনার ত্বকে লাগান। এটি আপনার ত্বকের মরা চামড়া প্রাকৃতিকভাবে দূর করে।

ত্বকের রং হালকা করার জন্য কমলালেবুর খোসা ও দই (Orange peel with curd for skin lightening)

দই এবং কমলালেবুর খোসার মিশ্রন লাগিয়ে আপনি আপনার ত্বকের রং হালকা করতে পারেন। কমলালেবুর খোসা শুকিয়ে গুড়ো করে নিন। এর সাথে এক চামচ দই মেশান এবং এই মিশ্রন গায়ে ও মুখে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট রাখুন ও তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপনি পাবেন ফর্সা ও সুন্দর ত্বক।

দই এবং কোকো (Cocoa with yogurt)

আমাদের ত্বকের মাঝে মাঝে ময়স্চারায়জিং এরও দরকার হয়। একটি ছোট পাত্রে এক চামচ কোকো পাউডার নিন এবং এর সাথে এক চামচ দই মেশান। এই মিশ্রন আপনার মুখে ভালো করে লাগান। ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। হালকা ভাবে তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে নিন। ত্বককে ময়স্চারায়জ করার জন্য এটি একটি অসাধারণ উপায়। ভালো ফল পেতে হলে আজকেই ব্যবহার করুন।