How to prevent baldness in females – Women’s baldness remedies – কিভাবে মহিলারা টাক পড়া প্রতিরোধ করবেন – মহিলাদের টাক পড়ার প্রতিকার সমূহ

চুল পাতলা হয়ে যাওয়া এবং টাকের সমস্যা যে কোন বয়সের এবং পরিবেশের মহিলাদের জন্য একটি গুরুতর সমস্যা হতে পারে। এটা সামগ্রিক ভাবে সৌন্দর্য্য এর উপর ভয়ঙ্কর প্রভাব বিস্তার করে এবং আত্ম্যবিশাষকে হ্রাস করে তোলে। মহিলাদের টাক পড়া জিনগত নয় এবং তাই সঠিক সময়ে সঠিক নিয়ন্ত্রনের মাধ্যমে এটাকে অনেকটাই প্রতিকার করা যায়। সুতরাং, নারীদের টাক প্রতিরোধ করার সবচেয়ে ভালো উপায় হল যথাসময়ে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়া তখনি যখন আপনি অত্যাধিক চুল পড়া দেখতে শুরু করেছেন।
এই প্রবন্ধটি প্রাথমিকভাবে আপনাকে জানাবে কি পরিবর্তনগুলি আপনি চুলের যত্নে এবং জীবনযাত্রায় অনুসরণ করলে ভাল মাথার খুলি এবং স্বাস্থ্যকর চুল বজায় রাখবে যা টাক প্রতিরোধে কার্যকরি হবে। যাইহোক, যদি এই প্রতিকারগুলির যথেষ্ট প্রয়োগ সত্ত্বেও আপনার চুল পড়া বন্ধের জন্য কার্যকরি না হয়ে থাকে , তবে এটা সঠিক সময় যে আপনাকে একজন চর্মরোগবিশেষজ্ঞর পড়ামর্শ নিতে হতে পারে।
হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, শারীরিক অসুস্থতা এবং শরীরের মধ্যে ঘাটতি ভাবে নারীদের চুল পড়ার প্রাথমিক কারণ এবং এইসব কারণ থেকে টাক পড়া প্রতিরোধ করার জন্য আপনাকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসা সাহায্য নিতে হবে। হরমোনের ভারসাম্যহীনতা , শারীরিক অসুস্থতা বা শরীরের মধ্যে ঘাটতি সহজেই পরীক্ষা করা যায় যথা সমযে চিকিৎসার মাধ্যম্যে এবং বর্তমানে চুল পড়া বন্ধ করার জন্য কিছু ঔষধ প্রয়োগের টনিক আছে যা টাক পড়া বন্ধ করে এবং নতুন চুল বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।সুতরাং, কিছু না করার পরিবর্তে এবং আপনার মূল্যবান চুলের হ্রাস হওয়া দেখার চেয়ে সঠিক পদক্ষ্যেপ গ্রহণ করুন সঠিক প্রয়োজনের জন্য।
যখনি দেখবেন আপনার অত্যাধিক চুল পড়া ও চুল পাতলা হতেহয়ে যাওয়া , আপনার প্রথম উদ্দেশ্য হল এর কারণ খুঁজে বের করা। চুল পড়া বিভিন্ন কারণে বেড়ে যেতে পারে। একটি নতুন চুলের যত্ন প্রদানকারী পণ্যের উপর শরীরের ভিতরকার ঘাটতি অথবা একটি নতুন চুলের সাজ আপনার অত্যাধিক চুল পড়ার একটি কারণ হিসেবে কাজ করতে পারে। তাই, হঠাৎ অত্যাধিক চুল পড়ার পিছনের কারণ খুঁজে বের করুন এবং তা দ্রুত নিষ্কাশন করুন টাক পড়া প্রতিরোধ করার জন্য।

নারীদের টাক প্রতিরোধের কিছু শ্রেষ্ঠ পড়ামর্শগুলি হল,

সঠিক খ্যাদ্যাভাষ অনুসরণ (Get the right diet)

সঠিক খ্যাদ্যাভাষ নারীদের টাক তাড়ানোর চাবিকাঠি হতে পারে। ভিটামিন এবং খনিজ পদার্থের ঘাটতি প্রায়ই চুল পড়া এবং টাক পড়ার প্রাথমিক কারণ হয়ে থাকে। সঠিক খাদ্য গ্রহণের মাধ্যমে আপনি আসলে নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনার শরীরে কোন প্রকার ঘাটতি নেই যা আপনার যে চুল পড়া আরম্ভ করতে পারে। সঠিক খ্যাদ্যাভাষ আপনার পরিপাক ক্রিয়ার উপর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যা অন্ত্রে প্রোটিনের পুষ্টির সাথে সম্পর্কযুক্ত এবং সেই কারণে প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজ সেইসাথে ফাইবার সুষম খাদ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। .
পর্যাপ্ত সব্জি এবং ফল আপনার খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন। আপনার শরীরের প্রোটিনের চাহিদার জন্য মাংস এবং মুরগির উপর পুরোপুরি নির্ভর না হয়ে , মাছ ও ডিম উপর আরও নির্ভরশীল হন। সঠিক খ্যাদ্যাভাষ অনেক পরিবর্তন আনতে পারে।

অসুস্থতার জন্য পরীক্ষা করে দেখুন (Check out for illnesses)

আপনার শরীরের হয়ত কিছু ব্যাধি আছে যা আপনি জানেন না যা কিনা আপনার চুল পড়ার এবংটাক পড়ার অন্যতম কারণ। সেইকাৰণে যখনই আপনি অস্বাভাবিক চুল পড়ার সম্মুখীন হবেন, তখনি ডাক্তারের কাছে পর্যবেক্ষণ করান যদি কোন অসুস্থতা চুল পড়ার কারণ হয়ে থাকে। এছাড়াও রক্তাল্পতা এবং অন্যান্য অভাব জনিত অসুস্থতা এবং হরমোনের ভারসাম্যহীনতা মহিলাদের টাক পড়ার একটি প্রধান কারণ হতে পারে। হরমনের অস্বাভাবিকতা কেবলমাত্র হরমন সংক্ৰান্ত ওষুধ নেওয়ার মাধ্যমে দূর করা যাবে। লিভার, পরিপাকতন্ত্রের অসুস্থতা বা জন্ডিস, টাইফয়েড, চিকেন পক্স এর মত অসুস্থতাও চুল পড়া এবং টাক পড়া আরম্ভ করতে পারে।

মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকুন (Stay away from stress)

অত্যাধিক চাপ চুল পড়া, চুল পাতলা হয়ে যাওয়া এবং এমনকি টাক পড়া তরান্নিত করতে পারে। পীড়ন শরীরে হরমনের স্বাভাবিক ভারসাম্য বিঘ্নিত করে, যা সমযের সাথে সাথে চুল পড়া এবং টাক পড়া বৃদ্ধি করে। নিয়মিত পর্যাপ্ত ঘুমান, যোগব্যায়াম করুন, আপনার কাজে শৃঙ্খলা আনুন যা জীবন থেকে চাপ দূর করতে সাহায্য করবে।

নারী টাক প্রতিরোধে চুলের যত্নে পরিবর্তন (Hair care changes to prevent baldness in females)

সঠিক উপায়ে এবং সঠিক পদ্ধতিতে চুলের যত্ন চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ এবং টাক প্রতিরোধ করার জন্য অত্যাবশ্যক। পরের অধ্যায়টিতে পড়ুন কি কি পরিবর্তন আনতে হবে নিয়মিত চুলের যত্ন নেওয়ার জন্য।

আপনার মাথার চুল পরিষ্কার রাখুন (Keep your hairs clean)

আপনার মাথার খুলি এবং চুল পরিচ্ছন্ন রাখা গুরুত্বপূর্ণ , না শুধুমাত্র শ্রেষ্ঠ স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার জন্য এমনকি আপনার মাথার খুলি এবং চুলের স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য। আপনার চুলকে নিয়মিত হাল্কা শুদ্ধিকারক দিয়ে পরিষ্কার করুন যখনই সামান্য চটচটে অনুভব করবেন। যদি আপনাকে প্রতিদিন বাইরে যেতে হয়, তাহলে ১ দিন অন্তর অন্তর আপনার চুল ভালো করে ধুয়ে নিন। অন্যথায় সপ্তাহে ৩ বার ধোয়া নির্বাচন করুন। এছাড়াও নোংড়া হাত দিয়ে চুল ধরার অভ্যাস বন্ধ করুন।

আপনার বালিশের কভার, চুলের ব্রাশ এবং গামছা পরিষ্কার রাখুন (Maintain your pillow cover, hair brush and towel)

চুলের ভাল স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার জন্য শুধুমাত্র আপনার চুল পরিচ্ছন্ন রাখাই যথেষ্ট নয়, এছাড়াও, আপনাকে বালিশ কভার, চুলের ব্রাশ এবং স্নানের গামছা পরিষ্কার এবং ভাল রক্ষণাবেক্ষণ নিশ্চিত করতে হবে। একটি নোংরা চিরূণী বা ময়লা বালিশের কভার আপনার মাথার খুলির জন্য সংক্রমণের উৎস হিসেবে কাজ করতে পারে এবং অত:পর আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে এই সব জিনিসগুলো যেন ময়লা এবং জীবাণুর সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকে।

রাসায়নিকের থেকে দূরে থাকুন (Stay away from chemicals)

আমরা প্রায়ই চুলে রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করি চুল পরিষ্কার, কন্ডিশনিং এবং স্টাইলিং এর জন্য। এই রাসায়নিকগুলি চুল পতনের একটি কারণ হতে পারে এবং এমনকি সময়ের সাথে টাক পড়ারও কারণ হতে পারে। সুতরাং, যদি আপনি ইদানীং চুল পড়া অনুভব করতে শুরু করেছেন , তাহলে সবচেয়ে বিকল্প ব্যবস্থা হল এইসব রাসায়নিক ভিত্তিক চুলের পণ্য থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন। চুল ধোঁয়ার জন্য সম্পূর্ণরূপে হাল্কা ভেষজ দ্রব্যাদি ব্যবহার করুন যা SLS এবং SLEs মুক্ত এবং অন্তত কিছু সময়ের জন্য স্টাইলিং জেল ও চুলের রংকে বিদায় জানান।

সঠিক পদ্ধতিতে আপনার চুল পরিস্কার করুন (Wash your hairs in the right way)

সঠিক উপায়ে আপনার চুল পরিষ্করনেয় মাধ্যমে আপনি অনেক পার্থক্য আনতে পারেন। এমনকি যখন ভেষজ শুদ্ধিকারক ব্যবহার করবেন কখনো এটি চুলের উপর সরাসরি ব্যবহার করবেন না। পরিষ্কার জলে প্রয়োজনীয় পরিমাণ শুদ্ধিকারক মিশ্রিত কপর্বেন এবং তারপর এই মিশ্রণ হাল্কা ভাবে আপনার ভেজা মাথার খুলিতে প্রয়োগ করবেন। পর্যাপ্ত পরিমাণে জল দিয়ে শুদ্ধিকারক ধুয়ে নেবেন যাতে আপনার চুলে কোন রকম শুদ্ধিকারক লেগে না থাকে।

চুল ভালোভাবে শুকোন এবং সঠিকভাবে আঁচড়ান (Dry and comb your hairs properly)

চুল ধুয়ে ফেলার পর , চুলের অতিরিক্ত জল ভালোভাবে শুকোন কিন্তু তোয়ালে জোরপূর্বক প্রয়োগ করবেন না। আপনার মাথার চুলকে স্বাভাবিকভাবে শুকোতে দিন এবং যতক্ষণ না চুল শুকোয় ততক্ষন চুল আঁচড়াবেন না। একটি মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে আপনার মাথার চুল আঁচড়ান তবে তা চুল ষাট শতাংশ শুকিয়ে যাওয়ার পর। আপনার চুল গোঁড়া থেকে খুবই নরম যখন তা ভেজা থাকে তাই তোয়ালের কাপড় বা চিরুনী দিয়ে আঁচড়ানো আপনার চুলের ক্ষতি করতে পারে।যখনি চুল আঁচড়াবেন তখনই মনে রাখবেন যেন চুল জোড়ে টানা না হয়।

আপনার চুলের স্টাইল পরিবর্তন (Change your hairstyle)

চুলের স্টাইল যা আপনার চুলের গোঁড়ায় টান প্রয়োগ করে তা চুল পড়ার কারণ হতে পারে এবং সেই কারণে যখনি আপনি এই ধরণের অবস্থার সমুক্ষীন তখনি আপনি আপনার চুলের স্টাইল পরিবর্তন করবেন। এমন একটি চুলের স্টাইল গ্রহন করুন যা আপনার চুলের জন্য আরামদায়ক হবে। এছাড়াও চুলের বিভাজিকার পরিবর্তন একটি ভাল উপায় হতে পারে যখনই আপনি চুল পড়া বা চুল পাতলা হয়ে যাওয়ার সম্মুখীন হবেন।

নারীদের চুল পড়া প্রতিরোধে কিছু বিশেষ চিকিৎসা পদ্ধতি (Special hair treatments to prevent balding in females)

উপরের উল্লিখিত রক্ষণাবেক্ষণগুলি ছাড়াও , টাক পড়া প্রতিরোধ করার জন্য নিম্নলিখিত পদ্ধতিগুলি আপনার দৈনন্দিন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করুন। এই চিকিৎসা পদ্ধতিগুলি আপনার নতুন চুলের বৃদ্ধিতে জন্য কার্যকরী হতে পারে।

আদার রস দিয়ে খুশকি এবং মাথার খুলির সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ (Fight dandruff and scalp infections with ginger juice)

চুলের যত্ন নেওয়া শুরু করার আগে যা আপনার চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ এবং চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে সাহায্য করে , আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যেন আপনার টাক খুশকি এবং অন্য কোন সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকে।. আদার রস আপনার মাথার খুলিকে সংক্রমণ থেকে মুক্ত রাখতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসা ব্যবস্থা হতে পারে। ভাল করে চিপে কিছু আদার রস আপনার মাথার খুলির উপর প্রয়োগ করুন। ২০ মিনিটের জন্য রাখুন এবং তারপর হাল্কা শুদ্ধিকারক দিযে ধুয়ে ফেলুন। এই চিকিৎসা ব্যবস্থা অন্তত সপ্তাহে একবার প্রয়োগ করুন যা নিশ্চিত করবে আপনার মাথার খুলি যে কোন ধরণের সংক্রমণ থেকে মুক্ত যা নাকি আপনার চুল পড়ার অন্যতম কারণ।

মেথি দিয়ে চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করুন (Boost hair growth with fenugreek)

মেথির বীজ আর্জেনিন সমৃদ্ধ যা আপনার নতুন চুলের বিচার বৃদ্ধিতে কার্যকরী হতে পারে।আপনি মাথার ত্বকে প্রয়োগ করার জন্য খুব সহজেই মেথির প্যাঁক্ তৈরি করতে পারেন কিছু মেথির বীজ জল রাতাভোর ভিজিয়ে এবং তারপর চূর্ণ করে মন্ড তৈরীর মাধ্যমে। এছাড়াও এক চামচ নারকেল তেলএই মিশ্রনে ভালো করে মিশ্রণ করুন। এক ঘন্টার জন্য এই প্যাকটিকে আপনার চুলে প্রয়োগ করুন যাতে এটি না শুকোয় এবং তারপর ধুয়ে ফেলুন।

পেঁয়াজ এবং রসুন নারীদের টাক পড়া প্রতিরোধ করতে পারে (Onion and garlic can prevent baldness in women)

উভয় পেঁয়াজ এবং রসুন সালফার সমৃদ্ধ এবং এই রান্নার উপাদানগুলো চুল পড়া রোধ করতে এবং চুল বৃদ্ধি উন্নত করার জন্য অত্যন্ত কার্যকরী হতে পারে। আপনি এদের যেকোনোটির নির্যাস ব্যবহার করতে পারেন এবং তারপর এই নির্যাসটি আপনার মাথার খুলি উপর প্রয়োগ করতে পারেন। এটাকে এক ঘন্টার জন্য প্রয়োগ করুন এবং তারপর একটি শুদ্ধিকারক দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এক দিন অন্তর অন্তর পুনরাবৃত্তি করুন।

টাক প্রতিরোধে ঘৃতকুমারী গাছের ব্যবহার (Aloe vera for baldness prevention)

ঘৃতকুমারীর ব্যবহার টাক পড়া প্রতিরোধে এবং চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে অন্যতম চিকিৎসা পদ্ধতি। পরিষ্কার ঘৃতকুমারীর মন্ড আপনার মাথার খুলি উপর ভালভাবে প্রয়োগ করুন, এক ঘন্টার জন্য রেখে দিন এবং তারপর জল দিয়ে ধুঁয়ে নিন।

নারী টাক প্রতিরোধে রোজমেরি তেলের ব্যবহার (Rosemary oil for preventing baldness in females)

রোজমেরি তেল চুলের একটি প্রাকৃতিক টনিক হিসাবে পরিচিত এবং এটি বিভিন্ন সমস্যা যেমন নারীদের টাকের সমস্যা প্রতিরোধে কার্যকর। ৭-৮ ফোঁটা রোজমেরি তেল ১৮-২০ ফোঁটা নারকেল অথবা অলিভ অয়েলের সাথে মিশ্রিত করুন। সকালে শুদ্ধিকারক দিয়ে চুল ধুঁয়ে ফেলার আগের রাতে এই তেল মিশ্রণটি আপনার মাথার খুলি এবং চুলের উপর ভাল করে মালিশ করুন।